ন্যাভিগেশন মেনু

হংকংয়ের ভবিষ্যত কেমন হতে পারে


চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং ২০২০ সালের নববর্ষের শুভেচ্ছাবাণীতে বলেছিলেন: আন্তরিকভাবে আশা করি, হংকং ভালো হবে, হংকংবাসীর ভালো হবে, হংকংয়ের সমৃদ্ধি ও স্থিতিশীলতা হংকংবাসীর আকাঙ্ক্ষা; যা মূল ভূভাগের জনগণের অভিন্ন প্রত্যাশা।

চীনের হংকং বিশেষ প্রশাসনিক অঞ্চল অতীতের ছোট ছোট জেলেপল্লী থেকে এখন বিশ্ববিখ্যাত আধুনিক বড় শহরে পরিণত হয়েছে। যা হল বংশ পরম্পরায় হংকংবাসীর পরিশ্রমের ফলাফল।

হংকংয়ের উন্নয়নের ওপর সবসময় গুরুত্ব দেন চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং। ২০১৭ সালের ২৯ জুন, সি চিন পিং হংকং বিশেষ প্রশাসনিক অঞ্চলে যান। তিনি সবাইকে বলেছিলেন, হংকংয়ের উন্নয়ন সবসময় তাঁর কাছে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার।

চীনের কমিউনিস্ট পার্টির অষ্টাদশ কংগ্রেসের পর চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং হংকংয়ে গিয়ে মূলভূভাগে হংকংয়ের ফিরে আসার ২০তম বার্ষিকীর উদযাপনীতে অংশ নিয়েছিলেন। তিনি বেশ কয়েকবার হংকং ইস্যুতে গুরুত্বপূর্ণ ভাষণ দিয়েছেন।

তিনি এই ভূখণ্ডকে খুব ভালোবাসেন, হংকংয়ের অবস্থাকে খুব ভালোভাবে জানেন, সবসময় হংকংয়ের সমৃদ্ধি ও স্থিতিশীলতার ওপর নজর রাখেন এবং হংকংবাসীর কল্যাণকে গুরুত্ব দেন।

তিনি বলেন, উন্নয়ন হল হংকংয়ের ভিত্তি, যা হংকংয়ের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের ‘সোনার চাবি’। হংকংয়ের সমৃদ্ধি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখা হল ‘এক দেশ, দুই ব্যবস্থার’ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

২০১৭ সালে ৯ বছর পর সি চিন পিং আবার হংকংয়ে যান, হংকংকে শুভেচ্ছা জানান। সেবার ৪৯ ঘণ্টার পরিদর্শনে তিনি ২০টি অনুষ্ঠানে অংশ নেন, হংকংয়ের অনেক জায়গা পরিদর্শন করেন। তিনি হংকংয়ের বিভিন্ন মহলের প্রতিনিধিদের সঙ্গে ব্যাপকভাবে মতবিনিময় করেন, যোগাযোগ করেন, ভালোভাবে হংকংয়ের নির্মাণ ও উন্নয়ন, হংকংয়ে ‘এক দেশ, দুই ব্যবস্থা’ বাস্তবায়নের জন্য নির্দেশনা দেন।

হংকংয়ে ‘এক দেশ, দুই ব্যবস্থা’ নীতির মুখোমুখি বিভিন্ন নতুন সমস্যা ও নতুন অবস্থা মোকাবিলায় সি চিন পিং প্রস্তাব দিয়েছেন: সবসময় উন্নয়ন এই শীর্ষ কাজের ওপর গুরুত্ব দেওয়া উচিত। উন্নয়ন হলো চিরদিনের কাজ। এটি হংকংয়ের ভিত্তি, এটি সমস্যা সমাধানের সোনালি চাবি। তিনি হংকংকে মূল ভূভাগের কোলে ফিরে আসার ২০তম বার্ষিকীর উদযাপনী অনুষ্ঠানে একথা বলেছেন।

শিশুরা আনন্দের সঙ্গে বড় হতে চায়, যুবকরা মেধাবী হতে চায়, তরুণ মানুষ ভালো চাকরি পেতে চায়, বয়স্করা ভালো অবসর জীবন চায়। এসব কিছু উন্নয়নের মাধ্যমেই অর্জন করা সম্ভব।

সি চিন পিং বলেন, হংকংয়ের উচিত নিশ্চিত সুযোগকে কাজে লাগিয়ে নির্মাণ এবং উন্নয়নের ওপর বেশি নজর রাখা।

ফিরে তাকাবো ১৯৯৭ সালের ১ জুলাই, সেদিন হংকংয়ে জাতীয় সংগীত বাজে, পঞ্চতারকা খচিত লাল পতাকা উত্তোলন হয়, হংকং আনুষ্ঠানিকভাবে চীনে ফিরে আসে। যা চীনা জাতির ইতিহাসের একটি বড় ব্যাপার। এর মাধ্যমে হংকং চীনা জাতির মহান পুনরুত্থানের মহান যাত্রায় যোগ দিতে পেরেছে।

চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং বলেন, হংকং মূল ভূভাগের ওপর নির্ভর করতে পারে, আর বিশ্বমুখী হয়। এর উন্নয়নের অনেক উপযোগী শর্ত এবং বিশেষ প্রতিদ্বন্দ্বিতার সুবিধা আছে। বিশেষ করে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে দেশের টেকসই দ্রুত উন্নয়ন হংকংয়ের উন্নয়নের জন্য বিশেষ সুযোগ সৃষ্টি করেছে।

কেন্দ্রীয় সরকার হংকংয়কে দেওয়া সাহায্য কখনই বন্ধ করে নি।

এশিয়ার আর্থিক সংকট ঠেকানো, আন্তর্জাতিক আর্থিক সংকটের প্রভাব কাটানো এবং সার্স মহামারি প্রতিরোধে, করোনাভাইরাসের মহামারি মোকাবিলা—ইত্যাদি নানা পদক্ষেপের মাধ্যমে হংকং আবারও দেশ পরিচালনা ব্যবস্থায় যোগ দিয়েছে, মূল ভূভাগের সঙ্গে যৌথ উন্নতি করতে পেরেছে।

আর দেশের রাষ্ট্রীয় কৌশল হংকংয়ের জন্য অভূতপূর্ব সুযোগ সৃষ্টি করেছে।

‘এক অঞ্চল, এক পথ’ নির্মাণ, কুয়াংতুং-হংকং-ম্যাকাও গ্রেট বে এলাকার নির্মাণ, রেনমিনবি’র আন্তর্জাতিকায়নসহ গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়ন কৌশলে হংকংয়ের সুবিধা ও ভূমিকা পালনে সমর্থন দিচ্ছে সরকার।

২০১৭ সালের ১ জুলাই সকালে সি চিন পিংয়ের উপস্থিতিতে ‘কুয়াংতুং-হংকং-ম্যাকাও সহযোগিতা সম্প্রসারণ, বৃহত্তর উপসাগরীয় এলাকার নির্মাণ জোরদার করার কাঠামোগত চুক্তি’ আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাক্ষরিত হয়। যা আন্তর্জাতিক শ্রেষ্ঠ মানের উপকূলীয় এলাকা নির্মাণ এবং বিশ্ব মানের শহর নির্মাণের দিক নির্দেশনা দিয়েছে।

২০১৭ সালের ১৫ ডিসেম্বর তত্কালীন হংকং বিশেষ প্রশাসনিক অঞ্চলের প্রশাসক কেরি লাম চেং-এর সঙ্গে সাক্ষাত্কালে সি চিন পিং বলেন: হংকংকে দেশের উন্নয়ন কাঠামোতে যোগ দেওয়ায় সমর্থন দিতে হবে। যা হংকংয়ের উন্নয়নে দিক নির্দেশনা দিয়েছে, যা হংকং এবং মূল ভূভাগ পরস্পরের তৈরি করা এবং যৌথ উন্নয়ন বাস্তবায়ন করতে পারে।

মূলভূভাগ দিন দিন সমৃদ্ধ ও শক্তিশালী হবে, যা শুধু হংকংয়ের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করবে না, বরং তা হংকংয়ের নতুন পথ অনুসন্ধান, উন্নয়নের নতুন শক্তি খোঁজা এবং সুযোগ সৃষ্টি করবে।

দেশ ভালো হলে, হংকং নিশ্চয় ভালো হবে, দেশ ভালো হলে, হংকং আরো ভালো হবে।

এখন হংকং বিশৃঙ্খলা থেকে শৃঙ্খলাপূর্ণ হওয়া এবং সমৃদ্ধ হওয়ার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং ২০২০ সালের নববর্ষের শুভেচ্ছাবাণীতে বলেন, আন্তরিকভাবে আশা করি হংকং ভালো হবে, হংকংবাসী ভালো হবে। হংকংয়ের সমৃদ্ধি ও স্থিতিশীলতা হংকংবাসীর আকাঙ্ক্ষা, চীনা জনগণের আকাঙ্ক্ষা।

হংকংবাসীরা হংকংকে ভালোভাবে পরিচালনা করতে পারে, নির্মাণ করতে পারে, উন্নত করতে পারে এবং নিশ্চয় দেশের উন্নয়ন এবং বিশ্বমঞ্চে আরো উজ্জ্বল করতে পারে।

সি চিন পিং বলেন, সুন্দর জীবন সম্পর্কে হংকংবাসীর আকাঙ্ক্ষা পূরণ করা, হংকংয়ের বিভিন্ন কাজ জোরদার করা—এসবের মূল বিষয় হল সঠিক দিকে এগিয়ে যাওয়া এবং সার্বিক  ও সঠিকভাবে ‘এক দেশ, দুই ব্যবস্থা’ নীতি উপলব্ধি করা এবং তা বাস্তবায়ন করা।

বর্তমানে হংকং বিশৃঙ্খলা থেকে সমৃদ্ধির পথে যাত্রা করেছে। গত ৩০মে হংকংয়ের ষষ্ঠ প্রশাসক লি চিয়া ছাও বলেন, তিনি বিশ্বাস করেন, নতুন মেয়াদের হংকং বিশেষ প্রশাসনিক সরকার নিশ্চয় নতুন সূচনা চালু করবে, হংকংয়ের আরো ভালো উন্নতি হবে।

মূল-ভূভাগের ওপর নির্ভর করে, কেন্দ্রীয় সরকার ও মূল ভূভাগের জনগণের ব্যাপক সমর্থনের মাধ্যমে, দেশে ফিরে আসার ২৫ বছরের সমৃদ্ধ অভিজ্ঞতা ও উন্নয়নের ভিত্তিতে, হংকং প্রশাসন সরকার ও সমাজের বিভিন্ন মহলের পরিশ্রমে, ‘এক দেশ, দুই ব্যবস্থা’ নীতি হংকংয়ে নিশ্চয় আরো নতুন অগ্রগতি এনে দেবে এবং হংকং নতুন সাফল্য অর্জন করতে পারবে। (সূত্র: সিএমজি)