NAVIGATION MENU

বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ, মামুনুলের বিরুদ্ধে মামলা করলো ঝর্ণা


প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ  সফরের বিরোধীতার মূল চক্রী কট্টর ইসলামপন্থীদল হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক যে যুবতীকে নিয়ে একটি অবকাশকেন্দ্রে ফূরতি করার সময় আটক হয়েছিলেন সেই নারী এবার তার বিরুদ্ধে মামলা ঠুকে দিয়েছেন।

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ এনে হেফাজতে নেতা মামুনুল হকের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন তাঁর কথিত দ্বিতীয় স্ত্রী জান্নাত আরা ঝর্ণা। আজ  শুক্রবার ঢাকার অদূরের জেলা নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানায় মামলাটি করেন তিনি।

সোনারগাঁ থানা পুলিশ মিডিয়াকে জানায়, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।

নারায়নগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানিয়েছেন,মামুনুল হকের সঙ্গে রয়াল রিসোর্টে যে নারী ছিলেন, তিনি আজ  সকালে মামুনুলের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলাটি করা হয়। তদন্ত স্বাপেক্ষে পরবর্তী ব্যবস্থা দেওয়া হবে।

মামুনুল হক দ্বিতীয় স্ত্রী দাবি করলেও দায়ের করা মামলায় জান্নাত নিজেকে মামুনুল হকের স্ত্রী বলেননি। তিনি বলেছেন, ‘অসহায়ত্ব ও বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মামুনুল হক আমার সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি করেছেন।

কিন্তু বিয়ের কথা বললে মামুনুল করছি, করব বলে সময়ক্ষেপণ করতে থাকেন। ২০১৮ সাল থেকেই ঘোরাঘুরির কথা বলে মামুনুল বিভিন্ন হোটেল,রিসোর্টে আমাকে নিয়ে যান।

জান্নাত বলেন, ‘তার স্বামী মাওলানা শহীদুল ইসলামের মাধ্যমে ২০০৫ সালে মামুনুল হকের সঙ্গে পরিচয় হয়। আমার স্বামীর সঙ্গে তার ভালো সম্পর্ক ছিলো যার কারণে বাড়িতে মামুনুলের অবাধ যাতায়াত ছিল। আমার স্বামীর সঙ্গে মতানৈক্য ছিলো। সেসবের মধ্যে মামুনুল হক আমাদের বাড়িতে এসে শহীদুল ও আমার মধ্যে দূরত্ব তৈরি করতে থাকেন।

পরে তার পরামর্শেই আমাদের বিচ্ছেদ হয়। ঝর্ণা আরও বলেন, ‘সংসার ভাঙ্গার পর আমি সামাজিক, অর্থনৈতিক ও পারিবারিকভাবে অসহায় হয়ে পড়েন। এ সময় মামুনুল আমাকে খুলনা থেকে ঢাকায় আসার জন্য বলেন।

আমি ঢাকায় চলে আসি। মামুনুল আমাকে তাঁর অনুসারীদের বাসায় রাখেন। সেখানে নানাভাবে আমাকে প্রস্তাব দেন। একপর্যায়ে পারিপার্শ্বিক অবস্থার কারণে তার প্রলোভনে পা দিই।

এরপর তিনি উত্তর ধানমন্ডির নর্থ সার্কুলার রোডের একটি বাসায় আমাকে সাবলেট রাখেন। একটি বিউটি পারলারে কাজের ব্যবস্থা করে দেন। ঢাকায় থাকার খরচ মামুনুলই দিচ্ছিলেন।

এদিকে গত ২৬ ও ২৭ মারচ মোদি বিরোধী আন্দোলনের আড়ালে ছিল শেখ হাসিনা সরকারকে উৎখাত করে একটি মুসলিমপন্থী সরকার গঠন করা। গোয়ন্দা রিপোট-এ তথ্য উঠে এসেছে। হেফাজতকে অরাজনৈতিক দাবি করলেও তাদের রাজনৈতিক অভিলাষ ছিল।

২০১৩ সালে রাজধানী ঢাকার মতিঝিলের শাপলা চত্বরের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটানো যায় কি-না।

এস এস