ন্যাভিগেশন মেনু

নিউইয়র্কে শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত


নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল, নিউইয়র্ক এবং কুইন্স পাবলিক লাইব্রেরির যৌথ উদ্যোগে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০২১’ পালন করা হয়েছে।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় দুপুর ১২টা হতে ১টা পর্যন্ত ভার্চুয়ালি দিবসটি পালিত হয়। এ বছরের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রতিপাদ্য ছিলো ‘অন্তর্ভূক্তিমূলক শিক্ষা ও সামাজিক ব্যবস্থার জন্য বহুভাষা ভিত্তিক চর্চা।’

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুননেসা এবং কুইন্স পাবলিক লাইব্রেরির প্রেসিডেন্ট ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডেনিস এম. ওয়ালকট।

কনসাল জেনারেল মহান ভাষা আন্দোলনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অনবদ্য সাংগঠনিক এবং রাজনৈতিক নেতৃত্বের কথা সশ্রদ্ধচিত্তে স্মরণ করেন এবং বাংলা ভাষার মর্যাদা রক্ষায় ও বাংলা ভাষাকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে প্রতিষ্ঠায় তাঁর অসামান্য অবদান এবং নেতৃত্বের প্রতি সম্মান জানিয়ে মুজিববর্ষের থিম সং সম্প্রচারের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু করেন।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. এ.কে. আব্দুল মোমেন, নিউইয়র্কসহ বিশ্বের সকল বাংলা ভাষাভাষী এবং অন্যান্য ভাষাভাষীদের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের শুভেচ্ছা জানান এবং প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশের অদম্য অগ্রযাত্রার কথা তুলে ধরেন।

এছাড়া, মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর সন্ধিক্ষণে তিনি ভাষা আন্দোলনসহ মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনে প্রতিটি আন্দোলনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বের কথা শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য ধন্যবাদ জানান।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহরিয়ার আলম, যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসওমেন গ্রেস মেং, নিউইয়র্ক স্টেট সিনেটর জন সি ল্যু, বাংলাদেশি-আমেরিকান জর্জিয়ার স্টেট সিনেটর শেখ রহমান, এ্যাসেম্বলিওমেন ক্যাটালিনা ক্রজ এবং কুইন্স বোরো প্রেসিডেন্ট ডোনাভান রিচার্ডস গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য প্রদান করেন।

জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধিসহ ১১টি দেশের (বাংলাদেশ, কলাম্বিয়া, কোট দ্য আইভরি, চেক রিপাবলিক, এস্তোনিয়া, ভারত, পেরু, সিংগাপুর, সুইডেন, সুইজারল্যান্ড এবং থাইল্যান্ড) রাষ্ট্রদূত/কনসাল জেনারেল এবং অন্যান্য গন্যমান্য ব্যক্তিরা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।

সিবি/এডিবি