NAVIGATION MENU

নাফ নদী থেকে ২ শিশুসহ তিন রোহিঙ্গার মরদেহ উদ্ধার


বাংলাদেশের কক্সবাজার জেলার টেকনাফের নাফ নদী থেকে মায়ানমারের বাসিন্দা তিন রোহিঙ্গার মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তারা নৌকা ডুবে মারা গিয়েছেন এবং তারা একই পরিবারের দুই শিশুসহ তিন জন।

শনিবার সকালে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের মৌলভিবাজার এলাকার নাফ নদীর তীর থেকে মরদেহগুলো উদ্ধার করা হয়েছে। মৃতেরা হলেন-উখিয়া বালুখালী ক্যাম্পের সমজিদা বেগম ও তার মেয়ে নুর শহিদা এবং রশিদা।

তারা নৌকায় করে অবৈধভাবে মায়ানমারে স্বজনদের সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার পথে এ দুর্ঘটনায় পড়ে মারা গিয়েছেন। এরআগে তারা নিখোঁজ ছিলেন বলে খবর ছিল। বিষয়টি নিশ্চিত করে টেকনাফ মডেল থানার ওসি মো. হাফিজুর রহমান জানান, নাফ নদী থেকে দুই শিশুসহ এক রোহিঙ্গা মহিলার মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আমরা এ বিষয়ে কাজ করছি। নৌকাতে কতজন রোহিঙ্গা ছিল সেটি খতিয়ে দেখছি।

 রোহিঙ্গাদের ভাষ্যমতে, সম্প্রতি একটি দালাল চক্রের হাত ধরে নৌকা নিয়ে বাংলাদেশ-মায়ানমার পারাপার করে আসছে কিছু রোহিঙ্গা। সে সুবাধে এখান থেকে জানে আলম নামে এক ব্যক্তির পরিবারের পাঁচ সদস্য নিয়ে মায়ানমারে স্বজনদের কাছে যাচ্ছিল।

এসময় ঝড়ে নৌকাটি ডুবে যায়। এতে তিনজন প্রাণ হারায়। হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রাশেদ মোহাম্মদ আলী বলেন, নাফ নদীর তীরে ভেসে আসা তিন রোহিঙ্গার মরদেহ পাওয়া গেছে।

এস এস