NAVIGATION MENU

ধর্ষণের প্রতিবাদী সাকিবও


দেশের নানাস্থানে ধর্ষণের প্রতিবাদে রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্নস্থানে মানুষ প্রতিবাদমুখর। নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জে এক মহিলাকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ভিডিও ছড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় দেশব্যাপী ঝাঁকুনি দিয়েছে। যে যার অবস্থান থেকে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। ধর্ষণ ও ধর্ষকদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন সব শ্রেণিপেশার মানুষ।

এবার ওই মিছিলে যোগ দিয়েছেন দেশসেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। নারীর প্রতি সহিংসতা ও বর্বরতা রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হওয়ায় দেশজুড়ে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদে শামিল হয়েছেন দেশের তারকারাও।

এই ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে কালো একটি ছবি পোস্ট করে চঞ্চল চৌধুরী তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘প্রতিবাদ....শাস্তি চাই অমানুষ গুলোর। ধর্ষকদের ধিক্কার জানিয়েছেন চিত্রনায়িকা জাকিয়া বারী মম।

সাকিব তার ভেরিফায়েড ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে জানিয়েছেন, নারী ও শিশুদের প্রতি প্রতিদিনই বর্বর মানুষেরা যেসব জঘন্য অন্যায় করছে, তাতে তিনি আর চুপ করে থাকতে পারছেন না। সাকিব তার স্ট্যাটাসে লিখেছেন– ‘চমৎকার একজন নারীর সন্তান আমি, জীবন চলার পথে স্ত্রী হিসেবে পেয়েছি অপূর্ব একজন নারীকে, দারুণ একজন নারীর ভাই আমি আর দুটি ফুটফুটে কন্যার বাবা আমি।

একশ্রেণির বর্বর মানুষ বয়স, ধর্ম ও বর্ণ নির্বিশেষে নারী ও শিশুদের প্রতি প্রতিদিনই যে জঘন্য অন্যায় করছে, তার পর আমি আর চুপ থাকতে পারি না। আমার অবস্থান তাই সব ধরনের ঘৃণা ও সহিংসতার বিরুদ্ধে। একে অপরের অধিকার রক্ষা ও আদায়ের জন্য আমাদের চালিয়ে যেতে হবে লড়াই, ঠিক যেভাবে আমাদের অধিকার নিশ্চিত করতে লড়েছিলেন আমাদের মুক্তিযোদ্ধারা।

আসুন আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই নৈতিক অবক্ষয়ের বিরুদ্ধে লড়াই করি এবং আমাদের নারী ও শিশুদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করি যাতে তারা স্বপ্ন দেখতে পারে এবং নির্ভয়ে তাদের জীবনযাপন করতে পারে। বেগমগঞ্জে গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন ও দেশব্যাপী সব ধর্ষণের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে রাজধানীর শাহবাগে দ্বিতীয় দিনের মতো ধর্ষণবিরোধী সমাবেশ হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুর থেকে ‘ধর্ষকের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ’ ব্যানারে গণজমায়েত শুরু হয়। প্রসঙ্গত গত ২ সেপ্টেম্বর রাত ৯টার দিকে বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের খালপাড় এলাকায় ওই গৃহবধূর বসতঘরে ঢুকে তার স্বামীকে পাশের কক্ষে বেঁধে রাখেন স্থানীয় বাদল ও তার সহযোগীরা।

এর পর গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টা করে তারা। এ সময় গৃহবধূ বাধা দিলে তারা বিবস্ত্র করে বেধড়ক মারধর করে মোবাইলে ভিডিওচিত্র ধারণ করেন। সেটি ছড়িয়ে দেয় ইন্টারনেটে। এ ঘটনায় দেশব্যাপী তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

এ ঘটনায় নির্যাতনের শিকার ওই নারী বাদী হয়ে রবিবার রাতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন এবং পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করেন। সেখানে ৯ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও ৭-৮ জনকে আসামি করা হয়। এছাড়া গত ২৫ সেপ্টেম্বর সিলেটে এমসি কলেজে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হন এক নববধূ।

এস এস