NAVIGATION MENU

জীবননগরে ইউপি চেয়ারম্যানের প্রত্যয়নপত্র ছাড়া বিয়ে নয়


চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের প্রত্যয়নপত্র ছাড়া কোনো বিয়ে হবে না মর্মে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে উপজেলা পরিষদ এবং উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) বেলা ১১টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এনজিও সংস্থা ওয়েভ ফাউন্ডেশন ও বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে কাজ করা জীবননগর উপজেলা লোকমোর্চার আয়োজনে এক মতবিনিময় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

জীবননগর উপজেলা লোকমোর্চার সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে এবং উপজেলা লোকমোর্চার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল লতিফ অমলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বক্তব্য দেন - জীবননগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মুনিম লিংকন, জীবননগর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাকি, জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. মো. মেহেদী আল মাসুম, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শ্রী দিনেশ চন্দ্র, জীবননগর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মুন্সী মাহবুবর রহমান বাবু, সাংবাদিক সমিতির সভাপতি জিএ জাহিদুল ইসলাম, উথলী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্যদের সভাপতি সাংবাদিক সালাউদ্দীন কাজল, সেনেরহুদা জান্নাতুল খাদরা দাখিল মাদরাসার সভাপতি আবু জাফর, সাংবাদিক কাজী সামসুর রহমান চঞ্চল, আকিমুল ইসলাম, আতিয়ার রহমান, উথলী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লুৎফর রহমান, শাহিনুর রহমান, ওয়েভ ফাউন্ডেশনের কামরুজ্জামান যুদ্ধ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, জীবননগর উপজেলাকে বাল্যবিয়ে মুক্ত করতে বাল্যবিয়ে দেওয়ার কাজে সহযোগিতাকারী, কাজী এবং ছেলে-মেয়ের অভিভাবকদেরকে আইনের আওতায় আনতে হবে।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত একমত পোষণ করে বলেন, বিয়ের আগে বয়স প্রমানের জন্য সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছ থেকে প্রত্যয়নপত্র নিতে হবে। ইউপি চেয়ারম্যানের প্রত্যয়নপত্র ছাড়া কোনো কাজি বিয়ে পড়ালে ওই কাজির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মতবিনিময় সভায় উপজেলার ৩৪ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মাদরাসার পরিচালনা পর্যদের সভাপতি এবং প্রধান শিক্ষক, লোকমোর্চার সদস্য, সাংবাদিক, সুধী সমাজের শতাধিক মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

এস কে/ এস এ /এডিবি