ন্যাভিগেশন মেনু

গ্রেপ্তারের ভয়ে দ্রুত ব্রাজিল ছাড়লেন আর্জেন্টিনার ফুটবলাররা!


লাতিন অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ে রবিবার (৫ সেপ্টেম্বর) রাতে মুখোমুখি হবার কথা ছিল ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার। তবে ৪ আর্জেন্টাইন ফুটবলারের কারণে স্থগিতই হয়ে গেল সুপার ক্ল্যাসিকো।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ থেকে আসা আর্জেন্টাইন চারজন ফুটবলারের ব্রাজিলিয়ান স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের ছাড়পত্র ছাড়াই মাঠে নেমে পড়া নিয়েই হট্টগোল, অতঃপর বিশ্বকাপ বাছাইয়ের লাতিন অঞ্চলের ম্যাচটি স্থগিত ঘোষণা করেছে কনমেবল।

আর ম্যাচ স্থগিতের পরপরই দ্রুত বিমানে করে ব্রাজিল ছেড়েছে লিওনেল মেসিরা। ধারণা করা হচ্ছে, গ্রেপ্তার এড়াতেই দ্রুত দেশে ফিরেছে আর্জেন্টিনা।

ব্রাজিলিয়ান হেলথ রেগুলেটরি এজেন্সির নির্দেশনা অনুয়ায়ী, ব্রাজিলিয়ান ছাড়া অন্য কেউ ব্রিটেন, উত্তর আয়ারল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা ও ভারত থেকে ব্রাজিলে প্রবেশ নিষিদ্ধ। যাদের ছাড় দেওয়া হয়েছে, তাদের অবশ্যই দেশটিতে আসার পর ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

এমিলিয়ানো বুয়েন্দিয়া, এমিলিয়ানো মার্টিনেজ, জিওভানি লো চেলসো ও ক্রিশ্চিয়ান রোমেরোর ক্ষেত্রে এই নিয়ম মানা হয়নি।

ম্যাচ শুরুর ৬ মিনিটের মাথায় মাঠে শুরু হয় তর্ক-বিতর্ক, হাতাহাতি। পরে রেফারি ড্রেসিংরুমে পাঠিয়ে দেন আর্জেন্টাইন খেলোয়াড়দের। স্টেডিয়াম ছাড়ার ঘণ্টা পাঁচেকের মধ্যেই ভাড়া করা বিমানে করে দেশের পথ ধরে আর্জেন্টিনার ফুটবলাররা।

ব্রাজিলিয়ান গণমাধ্যমের প্রতিবেদন, দেশের কঠোর কোয়ারেন্টাইন বিধি ভাঙার কারণে আর্জেন্টাইন ওই চার ফুটবলার গ্রেপ্তার হতে পারতেন। কেননা অভিযোগ উঠেছে, ইমিগ্রেশনের কাছে তথ্য গোপন করেছে আর্জেন্টিনা দল।

তবে ম্যাচ বাতিলের কারণ হিসেবে পূর্ণ ৩ পয়েন্ট যোগ হতে পারে আর্জেন্টিনার নামের পাশে। কনমেবলের নিয়মানুযায়ী এমনটাই হবার কথা। যদিও বা আনুষ্ঠানিক সিদ্ধান্ত জানাবে ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা।

ওআ/